রবিবার, ২১ এপ্রিল ২০২৪, ০৪:৩৫ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :

চুরির অভিযোগে তিন শিশুকে মারধর ও চুল কেটে দিলেন মেয়র হালিম শিকদার

  • আপডেট : সোমবার, ৬ ফেব্রুয়ারী, ২০২৩
  • ৮৭৯ পড়া হয়েছে

স্টাফ রির্পোটারঃ নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজার উপজেলার গোপালদী পৌরসভার রামচন্দ্রদীতে  পরিত্যক্ত কারখানার মেশিনের নাট-বল্টু চুরির অভিযোগে তিন শিশু মাদ্রাসা শিক্ষার্থীর হাত বেঁধে বেধড়ক পেটানোর পর মাথার চুল কেটে দেয়ার অভিযোগ উঠেছে গোপালদী পৌরসভার মেয়র এম এ হালিম সিকদারের বিরুদ্ধে।

এ বিষয়ে জানতে গেলে মারধরের বিষয়টি স্বীকার করে শিশুদের টোকাই বলে অভিহিত করেন মেয়র। এ নিয়ে এলাকাবাসীর মধ্যে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে।

সোমবার সকাল ১০টার দিকে উপজেলা পৌরসভার রামচন্দ্রদী এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। ঘটনাটি নিয়ে এলাকাবাসীর মধ্যে চরম ক্ষোভ দেখা দিয়েছে। মারধর ও নির্যাতনের শিকার শিক্ষার্থীরা হলো রামচন্দ্রদী গ্রামের জাহাঙ্গীরের ছেলে ও গোপালদী মাদ্রাসার ষষ্ঠ শ্রেণির শিক্ষার্থী বায়েজিদ (১০), একই এলাকার হাসানের ছেলে ও রামচন্দ্রদী মাদ্রাসার হেফজ বিভাগের ছাত্র সিয়াম (৮) এবং একই মাদ্রাসার শিক্ষার্থী ও জজ মিয়ার ছেলে আফরীদ (৮)।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, ওই তিন ছাত্র মাদ্রাসা থেকে বাড়িতে যাচ্ছিল। পথে গোপালদী পৌর মেয়র হালিম সিকদারের মালিকাধীন সিকদার সাইজিংয়ের সামনে পড়ে থাকা কয়েকটি নাট-বল্টু নিয়ে যায় তারা। এ সময় মেয়র তার লোকজন নিয়ে বাড়ি থেকে তাদের ধরে এনে হাত বেঁধে মারধর করেন। পরে রামচন্দ্রদী বাসস্ট্যান্ডে এনে তাদের মাথার চুল কেটে দিয়ে ছেড়ে দেন মেয়র।

ভুক্তভোগী শিক্ষার্থীদের পরিবারের সদস্য ও প্রত্যক্ষদর্শীদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, সোমবার সকালে মক্তব থেকে বাড়ি ফেরার পথে বায়েজিদ, সিয়াম ও আফরীদ গোপালদী পৌর মেয়র হালিম সিকদারের মালিকানাধীন সিকদার সাইজিংয়ের সামনে পড়ে থাকা কয়েকটি নাট-বল্টু নিয়ে যাওয়ার অপরাধে মেয়র তার লোকজন দিয়ে বাড়ি থেকে তাদের ধরে নিয়ে যান। শিশুদের হাত বেঁধে দুই ঘণ্টা আটক রেখে বেধড়ক মারধর করেন। এ সময় বায়েজিদের চাচা কালাম ও আলামিন শিশুদের পক্ষে মিনতি করেও তাদের নির্যাতনের হাত থেকে রক্ষা করতে পারেননি। পরে আশপাশের লোকজন জড়ো হতে থাকলে রামচন্দ্রদী বাসস্ট্যান্ডে নিয়ে শিশুদের মাথার চুল কেটে ছেড়ে দেয়া হয়।

আরও পড়ুন >   আড়াইহাজারে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে মাদ্রাসা ছাত্রী ধর্ষণের অভিযোগ

বায়েজিদের বাবা জাহাঙ্গীর বলেন, ‘কোনো কারণ ছাড়াই আমার ছেলেসহ তিন শিশুকে নির্যাতন করেছেন মেয়র। আমি এ ঘটনার বিচার দাবি করছি।’

জানতে চাইলে গোপালদী পৌরসভার মেয়র এম এ হালিম সিকদার বলেন, ‘এরা (ওই তিন শিশু) পেশাদার চোর। আগেও তারা চুরি করেছে। তাই তাদের চুল কেটে দিয়েছি।’

আড়াইহাজার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আজিজুল হক হাওলাদার বলেন, ‘এ ঘটনায় লিখিত অভিযোগ পেলে আইনি ব্যবস্থা নেয়া হবে।’

আপনার সামাজিক মিডিয়া এই পোস্ট শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরো খবর
স্বত্ব © ২০২৪ সাপ্তাহিক আড়াইহাজার
Theme Customized By BreakingNews